কিয়ামতের আগে প্রধান ১০ টি আলামাত সমূহ | Top 10 Sign Before Judgement Day

959
কেয়ামতের আগে প্রধান ১০ টি আলামাত সমূহ (The Final Days) | Top 10 Sign Before Judgement Da

বিচার দিবস বা হাসরের ময়দান কি? এবং তা কখন ঘটবে? তাঁর আগে কি কি হবে? এই নিয়ে একটি বিস্তারিত সিরিজে আমরা কুরআন এবং হাদিসের আলোকে বর্ননা করব, ইনশা আল্লাহ্‌।

মুসলিম শরীফের হাদিস হতে বর্ণিত , রাসুল (সাঃ) একদা মসজিদে এসে দেখলেন সাহাবীরা মসজিদে বসে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করছিলেন।  তিনি তাদের জিজ্ঞাসা করলেন তোমরা কি নিয়ে আলোচনা করছ? সাহাবীরা বলল কিয়ামাত কখন হবে সে সম্পর্কে কথা বলছি। আমরা আনুমান করতে চাচ্ছি কিয়ামত কখন হবে? রাসুল ( সাঃ)  বললেন, দশটি আলামত  না দেখা পর্যন্ত কিয়ামত সংঘটিত হবে না।

তিনি আরও   বললেন এই আলামতগুলো  সরাসরি কিয়ামতের সাথে জড়িত। যেখানে ১০ টি আলামাত পৃথক ভাবে বিভক্ত রয়েছে।

কিয়ামাত ততক্ষণ পর্যন্ত সংঘটিত হবে না যতক্ষণ না এই দশটি আলামত না দেখা যাবে। রাসুলুল্লাহ (সাঃ) তাঁর সাহাবীদের  একের পর এক তা উল্লেখ করেছেন।

আমরা এখন সেই ১০ টি লামত সমূহের তালিকা করতে যাচ্ছি। এবং ইনশাল্লাহ পরবর্তীতে আমাদের এই সিরিজটিতে আমরা প্রত্যেকটির উপর অনেক বিস্তারিত আলোচনা করব।

১, তিনি বললেন দুখান । দুখান হলো ধূলা, ধোঁয়া ও কুয়াশা মিশ্রিত।

২,  দাজ্জাল – এই বিষয়ে আমাদের ধারাবাহিক পর্বে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব ইনশা আল্লাহ্‌।

৩, হলো দাব্বাত –  দাব্বাত হলো পশুপ্রকৃতির ব্যক্তি এবং সে সম্পর্কে পবিত্র কুরআনে বিস্তারিত আলোচনা রয়েছে।

৪,  সূর্য পূর্ব দিকে উদিত হয়ে পশ্চিম দিকে অস্তমিত হয়। এবং  একদিন তা পশ্চিম দিক থেকে উদিত হবে।

৫,  হলো ঈসা ইবনে মারিয়ামের আগমন ঘটবে।

৬, নম্বর হলো ইয়াজুজ ও মাজুজের আগমন। এটি একটি অন্যতম প্রধান আলামত। আমরা তাদের সম্পর্কে এবং উত্থাপিত কিছু  সমস্যা সম্পর্কে কথা বলব ইনশাআল্লাহ।

৭, ৮, এবং ৯ হলো তিনটি জালাজিল অর্থাৎ তিনটি ভূমিকম্পের ফলে পৃথিবীকে কাঁপিয়ে দেবে।

এটি কোনো আঞ্চলিক ভূমিকম্প হয় নয় এগুলি এমন ভূমিকম্প যা মূলত বিশ্ব জানবে এটি একটি ভূমিকম্প। এই  তিনটি জালাজিল যা বিশ্বকে কাঁপিয়ে দেবে এবং প্রত্যেকটি একটি করে কম্পন দিবে।

পরের কম্পনটি প্রথমটির চেয়ে বড় হবে।

সুতরাং এটি টানা তিনটি ভূমিকম্প হবে । যা পুরো পৃথিবীই জানবে যে একটি ভূমিকম্প হচ্ছে এবং তারপর রাসুলুল্লাহ  (সাঃ) বললেন –

ওয়া আখিরু হুন্না অর্থাৎ  সর্বশেষ আলামত ।

১০, এই আলামত গুলোর শেষটা হলো জলন্ত আগুন যা ইয়েমেনে  প্রজ্বলিত হবে এবং মানুষকে পুনরুত্থানের দিকে চাপিয়ে দেবে।

কিয়ামতের সর্বশেষ নিদর্শন হবে আগুন যা মানুষকে এক জায়গায় একত্রিত হতে বাধ্য করবে এবং সেই জায়গাতেই মানবতার শেষ হবে।

জায়গাটি হবে (সিরিয়া)বিলাদ আল-শামে ।

অন্য এক হাদিসে রাসুলুল্লাহ  (সাঃ) উল্লেখ করেছেন, যে কোনো সময়ে এই দশটির একটি আসার পর অন্যটি খুব দ্রুত চলে আসবে।

সুতরাং এই দশটি আলামত একের পর আসতে থাকবে ঠিক ডোমিনোসের মতো।

প্রথমটি  শেষ হলে বাকীরা তা খুব তাড়াতাড়ি আসবে ।

এই দশটি আলামতের প্রথমটি মারিয়মের পুত্র ঈশা (আঃ) পুনরায় আগমন  এতে কোনো সন্দেহ নেই। এবং তিনি যখন আসবে তখনই বাকিগুলো একের পর এক আসতে থাকবে আর এটাই কিয়ামত।

ছোট আলামত গুলোর শেষটি হলো ইমাম মাহাদীর আগমন। ইমাম মাহাদীর আগমন যখন ঘটবে, তখনি ছোট আলামত গুলোর পরিসমাপ্তি ঘটবে।

এবং ইমাম মাহাদী জীবিত থাকবে।

সুতরাং ইমাম মাহাদি ও ঈসা (আঃ) একই সাথে একই সময়ে বিদ্যামান থাকবে।

একই স্থানে একে অপরের সাথে যোগাযোগ করবে এবং এটি আক্ষরিকভাবে মনে হয় যেন ছোট আলামত গুলো শেষ হয়ে আসছে এবং বড় আলামত  গুলো শুরু হচ্ছে।  এবং এটিই কেয়ামত পর্যন্ত নিয়ে যাবে।

পরবর্তী পর্ব গুলোতে এই ১০ টি আলামত সমূহের বিস্তারিত আলোচনা করা হবে ইন শা আল্লাহ্‌।